University of Science and Technology Chittagong

ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি চট্টগ্রাম


ইউএসটিসি’র ডিপার্টমেন্ট অব ফার্মেসীর উদ্যোগে ’খাদ্যে ভেজাল ও জনস্বাস্থ্য সমস্যা’ বিষয়ক আলোচনা সভায় বক্তব্য দিচ্ছেন প্রফেসর আ ব ম ফারুক।

ইউএসটিসি’তে আলোচনা সভায় প্রফেসর আ ব ম ফারুক ভেজাল ও ফরমালিনযুক্ত পন্য মানবদেহকে ধ্বংস করে দিচ্ছে আইন প্রয়োগের পাশাপাশি জন-সচেতনতা বাড়াতে হবে



এক শ্রেনীর মানুষরুপী শয়তান অধিক মুনাফা লাভের লক্ষ্যে নিম্নমানের উপকরন দিয়ে নোংরা ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে নিত্য-প্রয়োজনীয় পন্য সামগ্রী উৎপাদন করে বিএসটি আই’র অনুমোদন ছাড়াই তা বাজারজাত করছেন। কোন কোন ব্যবসায়ী মাছ, মাংস, নানা প্রকার ফলসহ কাচাঁ পন্যে ব্যবহার করছেন বিষাক্ত ফরমালিন। এ সব ভেজাল ও দু’নম্বরী পন্য মানব দেহকে তীলে তীলে ধবংস করে দিচ্ছে এবং এর থেকে বাঁচতে হলে আইন প্রয়োগের পাশাপাশি সরকারী বেসরকারী উদ্যোগে মানুষের মাঝে সচেতনতা বাড়াতে হবে। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রাম (ইউএসটিসি)’র ডিপার্টমেন্ট অব ফার্মেসীর উদ্যোগে ’খাদ্যে ভেজাল ও জনস্বাস্থ্য সমস্যা’ বিষয়ক এক আলোচনা সভায় ঢাকা বিশ্ব বিদ্যালয়ের সাবেক ডীন প্রফেসর আ ব ম ফারুক মূল আলোচকের বক্তব্যে এ অভিমত ব্যক্ত করেন।

২১ জুন ২০১৮ তারিখ বুধবার সকাল ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভাগীয় সভাকক্ষে উক্ত সভায় বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কনজুমারস এসোসিয়েশন অফ বাংলাদেশ (ক্যাব)’র ভাইস প্রেসিডেন্ট এস এম নাজের হোসাইন।

খুব হালকা আইন, তাও মূল হোতাদের বিরুদ্ধে যথাযথভাবে প্রয়োগ হয়না, বাজার মনিটরিনে আছে নানা দূর্বলতা, সেই সাথে আমাদের ক্রেতা সাধারনের অসচেতনতার কারনে ভেজাল, নকল ও ফরমালিনযুক্ত পন্য নির্বিঘেন বাজার দখল করছে উল্লেখ করে প্রফেসর আ ব ম ফারুক আমাদের জীবনকে বাঁচাতে বিশুদ্ধ খাদ্য সম্পর্কীত বিষয়ে সকলকে আরো সচেতন হওয়ার আহবান জানান।

ক্যাবের ভাইস প্রেসিডেন্ট এস এম নাজের হোসাইন বলেন টাটক-সতেজ ও বিষমুক্ত খাদ্য সামগ্রী প্রাপ্তি আমাদের ন্যায্য অধিকার। কিন্তু আইনের যথাযথ প্রয়োগ না থাকায় এবং সরকারী-বেসরকারী উদ্যোগে সচেতনতা সৃষ্টিমূলক কর্মসূচী বাস্তবায়ন না থাকায় সেই অধিকার থেকে আমরা বঞ্চিত হচ্ছি।